শিরোনাম

ট্রাম্পের উগ্রতার চরম মাত্রা যেন বিশ্বে ‘মুসলিম নিধনে’ সহযোগী না হয়

trump

টাইমস৭১বিডি ডেস্ক, ঢাকা – 

গণতন্ত্রের মূর্ত প্রতীকখ্যাত আমেরিকার নয়া প্রেসিডেন্ট হিসেবে যেই নামটি গতকাল নির্বাচিত হলো তার নাম “ডোনাল্ড ট্রাম্প” । কিন্তু বিশ্বব্যাপী সেই গণতন্ত্রের ধোঁয়া তোলা মার্কিন প্রেসিডেন্টদের কাতারে নব নির্বাচিত ট্রাম্পের মুসলিম বিদ্বেষী বক্তব্য শুধু ব্যক্তি ট্রাম্পকেই নয় “গণতন্ত্রের ধারক বাহক মার্কিন মুল্লুক“কে ফেলে দিচ্ছে এক গহীন আঁধারে ।

গেলো জুল মাসে ডোনাল্ড ট্রাম্প সেইসব দেশের মুসলিমদের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা বলেন যেসব দেশের মানুষ এর আগে দেশটিতে সন্ত্রাস সৃষ্টি করেছে। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য তিনি প্রেসিডেন্টের নির্বাহী ক্ষমতা কাজে লাগানোর পরামর্শ দেন।

ট্রাম্পের দেওয়া উক্ত বক্তব্যের তাৎক্ষনিক  প্রতিক্রিয়ায় প্রাক্তন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরুন ট্রাম্পের উক্ত মুসলিমবিরোধী বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়ে ছিলেন ।  ট্রাম্পের মুসলিমবিরোধী বক্তব্যকে ধ্বংসাত্মক, অপ্রত্যাশিত ও মারাত্মক ভুল হিসেবে আখ্যা দিয়েছিলেন ক্যামেরুন।

ক্যামেরুন তার প্রদত্ত এক বক্তব্যে এটাও বলেছিলেন যে, ট্রাম্পের উক্ত বক্তব্য মার্কিন মুসলিম মূল্যবোধকে খাটো করেছে

ট্রাম্পের উক্ত বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় শুধু ক্যামেরুন নয়  শামিল হয়েছিলো ওবামা সহ হোয়াইট হাউস, পেন্টাগন ও ফরাসি নেতা এবং জাতিসংঘ উদ্বাস্তু বিষয়ক সংস্থা।

যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতির অঙ্গন হয়ে উঠেছিলো সমালোচনার ঢেউয়ে উত্তাল।  দমকা হাওয়া বইছিলো যেন ফেসবুক, টুইটারে সহ সকল

আবার কারো কারো মুখে  এও শোনা গিয়েছিলো যে ট্রাম্পের মুখে হিটলারের প্রতিধ্বনি শোনা যাচ্ছে 

এখানে একটি সুক্ষ বিষয় হলো – নব নির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের নিযুক্তিতে ইসরাইলের বক্তব্য কিন্তু পরিস্কার। ইসরাইল তাদের প্রদত্ত বক্তব্যে বলছে – তারা পেয়েছে তাদের প্রকৃত বন্ধু । মার্কিন মুল্লুকে দাঁড়িয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের মুসলিম বিদ্বেষীতার যে আওয়াজ ট্রাম্প তুলেছিলেন গেলো জুনে তা যদি তিনি উহ্য না করেন তবে গোটা দুনিয়াতে মুসলিম বিদ্বেষীতা – মুসলিম নিধন – মুসলিম দমন পীড়ন নীতি চরম মাত্রায় রুপ নেবে, আর এই সুযোগেই বৈধতা পাবে তালিবান-আল কায়েদা-আইসিস-বোকো হারামের মতো আন্তর্জাতিক জঙ্গি সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীর অন্ধকার জগতের কার্যক্রম- বাড়বে তাদের হামলা আক্রমন ।

একটি সুক্ষ বিষয় লক্ষ্যনীয় যে,  ট্রাম্পের মূল শক্তিখ্যাত সেই উগ্র বর্ণবাদী ও অভিবাসনবিরোধী গোষ্ঠীদের মাঝে ইসলাম ও মুসলিম বিদ্বেষীতার মাত্রা চরমে । আর সেই সুত্রে ট্রাম্পের উক্ত বক্তব্যের বিপরীত অবস্থান যদি ট্রাম্প চিনহিত না করেন তবে মুসলিম বিদ্বেষীতার অনল মার্কিন মুল্লুক ছেড়ে গোটা দুনিয়াতে প্রভাব ফেলতে বাধ্য । আর এই বিষয়টিই সন্ত্রাসবাদী গ্রুপগুলোর মাথায় খুন চড়াবে আর বাড়বে তাদের চোরাগোপ্তা হামলা আক্রমন ।

আর তাই সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে ফুটে উঠেছিলো যে , খোদ আইএস বা আইসিসরাই চায় চরম মুসলিম বিদ্বেষী ট্রাম্প মার্কিন ক্ষমতার মসনদে আসীন হোক আর ডিমান্ড বাড়ুক আইসিস বা আইএস,  তালিবানের মতো জিহাদী গ্রুপগুলোর ।

প্রতিবেদনে – শোয়ায়েব হুসাইন মোল্লা 

 

 

১৩১৯ বার পড়া হয়েছে সব মিলিয়ে ৩ বার পড়া হয়েছে আজ

মন্তব্য

আপনার ইমেইল গোপন থাকবে - আপনার নাম এবং ইমেইল দিয়ে মন্তব্য করুন, মন্তব্যের জন্য ওয়েবসাইট আবশ্যক নয়

*

indobokep borneowebhosting video bokep indonesia videongentot bokeper entotin videomesum bokepindonesia informasiku videopornoindonesia bigohot
Inline
jQuery(document).ready(function($) { /*$.removeCookie('dont_show', { path: '/' }); */ $('.popup-with-form').magnificPopup({ type: 'inline', preloader: false, }); if( $.cookie('dont_show') != 1) openFancybox(5000); }); function openFancybox(interval) { setTimeout( function() {jQuery('.efbl_popup_trigger').trigger('click'); },interval); }
Inline
jQuery(document).ready(function($) { /*$.removeCookie('dont_show', { path: '/' }); */ $('.popup-with-form').magnificPopup({ type: 'inline', preloader: false, }); if( $.cookie('dont_show') != 1) openFancybox(5000); }); function openFancybox(interval) { setTimeout( function() {jQuery('.efbl_popup_trigger').trigger('click'); },interval); }